Sat. Jan 16th, 2021

আজ বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের সহধর্মিনী, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর যিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাল ধরেছিলেন, সেই মহীয়সী নারী সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের মৃত্যুবার্ষিকী।

জগতে মহাপুরুষদের ছায়া হয়ে কিছু নারীরও জন্ম হয়। যারা সেইসব মহাপুরুষদের অন্তর্ধানে শুধু সংসারের নয়, গোটা বিশ্বের শান্তি ও মানবতার স্বার্থে মহীরুহ হয়ে আবির্ভূত হোন। এমনই এক মহীয়সীর নাম জনাবা জোহরা তাজ উদ্দিন আহমেদ।জাতির পক্ষে স্বর্গীয় এ মহীয়সীর আত্মার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও অশেষ প্রার্থনা।

সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন, তিনি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আহবায়ক, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমেদ এর সহধর্মিণী। দল ও দেশের অত্যন্ত দুঃসময়ে হাল ধরা এই মহীয়সী নারীর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের একটি উক্তি : “আমি আমার স্বামীকে হারিয়েছি, আমার সন্তানেরা এতিম হয়েছে কিন্তু জাতি হারিয়েছে বঙ্গবন্ধুকে আর জাতীয় চার নেতাকে,আমার ক্ষতির চেয়ে জাতির অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেল।”‘’ আমারে দিই তোমার হাতে নূতন ক’রে নূতন প্রাতে॥দিনে দিনেই ফুল যে ফোটে, তেমনি করেই ফুটে ওঠে জীবন তোমার আঙিনাতে নূতন ক’রে নূতন প্রাতে॥ বিচ্ছেদেরই ছন্দে লয়ে মিলন ওঠে নবীন হয়ে।আলো-অন্ধকারের তীরে হারায়ে পাই ফিরে ফিরে, দেখা আমার তোমার সাথে নূতন ক’রে নূতন প্রাতে॥ ’’Mahjabin Ahmad Mimi |(বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের কনিষ্ঠ কন্যা তার ফেইসবুকে লিখেন এই কথা।)

Zohra Tajuddin with her husband Bangladeshi 1st HPM Tajuddin Ahmad

কে ছিলেন এই জোহরা তাজউদ্দীন?.১৫ আগস্ট রাতে মুজিব পরিবারের নারী, শিশু, অন্তঃসত্ত্বা নারীকেও হত্যা করা হয়েছিল। এর একটাই কারণ যাতে আওয়ামী লীগ একটা খড়কুটো ধরেও কখনো মেরুদন্ড সোজা করে আর দাঁড়াতে না পারে।.১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত একচেটিয়াভাবে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বদনাম ছড়ানো হয়েছে, তাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের কোনো সুযোগ দেয়া হয়নি। মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসে এবং মুক্তিযুদ্ধে আওয়ামী লীগের কোনো অবদান নেই, এমন একটা মনগড়া রেডিমেইড ইতিহাস দাঁড় করাবার চেষ্টা হয়েছিল। আওয়ামী লীগ ভারতের কাছে দেশ বিক্রি করে দিয়েছে, আওয়ামী লীগ ইসলামের শত্রু, আওয়ামী লীগ নাকি মানুষকে মাথায় টুপি পরতে দেয়নি, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র হত্যা করেছে, আওয়ামী লীগ আমলে শুধুই দুর্নীতি হয়েছে, আর কিছু হয়নি।.এমন ঢালাও বদনামের দিনে খুব দুর্দিনে সর্বপ্রথম আওয়ামী লীগের হাল ধরলেন শহীদ তাজউদ্দীন আহমদের বিধবা স্ত্রী সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন। অনেকে ধারণা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু ও জেল হত্যার পর আওয়ামী লীগ আর আলোর মুখ দেখবে না। জোহরা তাজউদ্দীন তাদের সেই স্বপ্নে ছাই ঢেলে দিয়েছিলেন। ‘৭৫ পরবর্তী আওয়ামী লীগের প্রথম জাগরণ ঘটালেন, বাঙালির নিদ্রা ভাঙালেন জোহরা তাজউদ্দীন।.ঐ কালবেলায় আওয়ামী লীগ এর ঐ ক্রান্তিলগ্নে একজন নারী হিসাবে স্বামীর পথের পথিক হয়ে হাল ধরেন এই রাজনৈতিক দলটির। প্রচন্ড কোনঠাসা, বিপর্যয়, সাংগঠনিক সমন্বয়হীনতাকে দূরে ঠেলে দিয়ে ‘জোহরা তাজউদ্দীন’ তাঁর নেতৃত্বে দলকে বাংলাদেশ এর জনগনের কাছে মেলে ধরেন। খুব সম্ভব তাজউদ্দীনের সঙ্গে সাংসারিক জীবনে তিনি তাঁর (তাজউদ্দীন) পূর্ণাঙ্গ চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য আর গুনাবলী নিজের মধ্যে ধারণ করেন।.১৯৭৮ পর্যন্ত দলের হাল শক্তহাতে ধরেছিলেন বলেই আওয়ামী লীগ টিকে ছিল। মরে যায়নি। এই সেই জোহরা তাজউদ্দিন। তাজউদ্দীন পরিবার শেখ পরিবারের সবচেয়ে বড় বন্ধু, তা যুগে যুগে প্রমাণিত। তাজউদ্দীন পরিবার আওয়ামী লীগের একটি প্রধান স্তম্ভ।.আজ জোহরা তাজউদ্দীন নেই। তবে বাংলাদেশের সেরা নারী নেতৃত্বের তালিকায় উনি অনেকের চাইতে অগ্রগামী থাকবেন, এতে কোন সন্দেহ নেই। অথচ, এই প্রজন্ম তাঁকে জানলোই না কখনো। আড়ালেই থেকে গেলেন অনেকগুলো বছর।.কৃতজ্ঞ তোমার কাছে, হে মহিয়সী।

Article Courtesy : Aparajita Neel

HPM Sheikh Hasina & Sheikh Rehana visited Zohra Tajuddin at home

সুধী জনদের স্মৃতিচারণ সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের মৃত্যুবার্ষিকীতে;

শৈবাল তালুকদার তাঁর স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাই।

Zia Us Sobhan বিনম্র শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা এই মহীয়সীর প্রতি! আল্লাহ তাঁকে বেহেশতের বাগানে অনন্ত শান্তিতে রাখুন!

H A Boby জগতে মহাপুরুষদের ছায়া হয়ে কিছু নারীরও জন্ম হয়। যারা সেইসব মহাপুরুষদের অন্তর্ধানে শুধু সংসারের নয়, গোটা বিশ্বের শান্তি ও মানবতার স্বার্থে মহীরুহ হয়ে আবির্ভূত হোন। এমনই এক মহীয়সীর নাম জনাবা জোহরা তাজ উদ্দিন আহমেদ।জাতির পক্ষে স্বর্গীয় এ মহীয়সীর আত্মার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও অশেষ প্রার্থনা।

Nuzhat Choudhury শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা

Sharita Millat May Allah Almighty grant Vc Aunty the highest place in Jannath

Hasnat Mia আল্লাহ্ তাঁকে জান্নাতবাসী করুন। আমিন |

Zohra Tajuddin with her children

Azmi Tara Love u and respect u dear Big fish Nanu, always love u miss u , Legend woman of our Nation.

Gani Anwar She was a great lady and warrior we are so proud of her courage and her ability to unite the party in difficult time May Allah Subnatala grant her the Jannat ul firdaus. Ameen

Shammi Firoz My deepest love and respect for this legendary woman.. she will remain as an integral part of our glorious history.. may the almighty Allah keep her in jannah forever |

Md Majahrul বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের আহবায়ক ও প্রেসিডিয়াম সদস্য, আমার পরম শ্রদ্ধেয় নেত্রী সৈয়দা জোহুরা তাজ উদ্দীন এর ৭ম মৃত্যু বার্ষিকীতে কাপাসিয়া উপজেলা যুবলীগ ওসনমানিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের পক্ষ থেকে জানাই গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।দোয়া করি আল্লাহ্ আমাদের প্রিয় নেত্রী কে জান্নাতবাসী করুক। আমীন।

By HerNet

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *