Fri. Jan 22nd, 2021

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় ‘শ্বশুরবাড়ির পাঁচ লাখ টাকার আবদার’ না মেটানোয় এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় মোকামতলা ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই গৃহবধূর নাম রচনা রাণী রপা (২২)। তিনি সাঘাটা উপজেলার পদুমশহর গ্রামের রতন চন্দ্র মোহন্তের মেয়ে এবং শংকরপুর গ্রামের অনিক অধিকারীর স্ত্রী।

ঘটনার দিন রাতেই স্বামী অনিক অধিকারী (২৮), তার ছোট ভাই অভি চন্দ্র অধিকারীকে (২৩) আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার বিকেলে শিবগঞ্জ থানায় গৃহবধূর স্বামী, দেবর, শ্বশুর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বেসরকারি এনজিওতে কর্মরত ওই গৃহবধূর বাবা রতন চন্দ্র মোহন্ত বলেন, ‘দুই বছর আগে মেয়েকে বিয়ে দিই। বিয়ের সময় সাড়ে ৬ লাখ টাকা এবং ৩ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার দিই। কিন্তু এক বছর পরেই জামাইয়ের চাকরিতে ঘুষ দেওয়া লাগবে বলে আরও ৫ লাখ টাকা দাবি করে মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

তিনি আরও বলেন, ‘ওই টাকা দিতে না পারায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রায়ই বিভিন্নভাবে রচনার ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাচ্ছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় আমাকে ফোন করে জানানো হয়, রচনা গুরুতর অসুস্থ। কিন্তু এসে দেখি সে মারা গেছে। কী কারণে মেয়ে মারা গেছে, তা জানতে চাইলে মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজন কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি।’

রতন মোহন্ত অভিযোগ করেন, ‘তার মেয়েকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। শরীরে ও গলায় আঘাতে চিহ্ন রয়েছে।’

এ বিষয়ে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান বলেন, ‘লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়ার শহীদ জিয়াউর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও দেবরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।’

By HerNet

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *