Thu. Jan 21st, 2021
Farjana Yesmin

করোনার মহামারীতে নিরলস সেবা দিয়ে যাচ্ছে পানছড়ির তিন স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট। নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে স্বেচ্ছাশ্রমে তাদের সাহসী ভুমিকাকে স্বাগত জানিয়েছে পানছড়ির সর্বস্তরের জনগণ। জানা যায়, মো. ফারুক হোসেন সবুজ, মো. আব্দুছ সাত্তার ও এক মাত্র নারী “ফারজানা ইয়াসমিন সুমিপিতা মোঃ বেলাল হোসেন স্বেচ্ছাশ্রমে এগিয়ে এসেছে মানব সেবায়। করোনার নমুনা সংগ্রহ করার মতো ঝুকিপূর্ণ কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিতে পেরে সে আত্মতৃপ্তি পাচ্ছেন বলে জানালেন।

বর্তমানে স্বেচ্ছাসেবী “ফারজানা ইয়াসমিন সুমি” নিত্য ছুটছে করোনার নমুনা সংগ্রহের কাজে। এ কাজে সুযোগ করে দেয়ায় সে কৃতজ্ঞতা জানালেন খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন ডা. নুপুর কান্তি দাশ ও পানছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অনুতোষ চাকমার প্রতি। পানছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ল্যাবরেটরি) সলিট চাকমা’র হাত ধরেই নমুনা সংগ্রহ করার পদ্ধতি রপ্ত করেছে সে।

পানছড়ি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জানান, বিগত প্রায় তিন মাস ধরে সে স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট হিসেবে সুনামের সহিত কাজ করে আসছে। তার কাজের প্রতি আগ্রহ ও বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে স্বেচ্ছাশ্রমে ছুটে আসাটা নজরকাড়া।

খাগড়াছড়ি জেলা সিভিল সার্জন নুপুর কান্তি দাশ বলেন, জেলার বিভিন্ন উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট হিসেবে যারা কাজ করছে আমরা তাদের একটা তালিকা পাঠিয়েছি। সরকার যদি কখনো স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের নিয়োগ দেয় তখন তারা অগ্রাধিকার পাবে।

By HerNet

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *